খেলা

১০০১ টাকায় জমি পেলেন ক্রিকেটার মিরাজ!

খুলনা মহানগরীতে জমি পেলেন ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ। মুজগুন্নী এলাকায় তিন কাঠার একটি প্লট পেয়েছেন তিনি। ওই প্লটের রেজিস্ট্রি বাবদ মিরাজকে খরচ করতে হয়েছে মাত্র এক হাজার এক টাকা। আর ওই প্লটের ওপর বাড়ি নির্মাণ করে দেবে খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (কেডিএ)। গতকাল সোমবার কেডিএ ভবনের মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে মিরাজের হাতে ওই প্লটের দলিল তুলে দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মিরাজ ওই প্লটটি পেলেন। গত বছর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মিরপুর টেস্টে ঐতিহাসিক জয় পায় বাংলাদেশ। টেস্টে ইংল্যান্ডের মতো পরাশক্তির বিরুদ্ধে এটাই বাংলাদেশের প্রথম জয়। ওই টেস্টে মিরাজে অফস্পিনে ধসে যায় ইংল্যান্ডের ব্যাটিং অর্ডার। দুই ইনিংসেই ছয়টি করে উইকেট নিয়ে তিনি হন ম্যাচসেরা। কেবল ওই ম্যাচ নয়, ওই সিরিজেই ম্যাচসেরা হন মিরাজ। ওই সিরিজের মাধ্যমেই টেস্টে অভিষেক হয় তাঁর। এর আগে তিনি ছিলেন অনূর্ধ্ব ১৯ দলের সফল অধিনায়ক।

টেস্টজয়ের পর মিরাজ খুলনায় আসলে তাঁকে স্বাগত জানাতে আসে সর্বস্তরের মানুষ। তখনই গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয় মিরাজদের জরাজীর্ণ বাড়ির ছবি। বিষয়টি জানতে পেরে মিরাজকে বাড়ির জমি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ  হাসিনা। খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ মুজগুন্নী আবাসিক এলাকায় প্রায় সাড়ে তিন কাঠার একটি প্লট দেয় তাঁকে। কেডিএ মাত্র এক হাজার এক টাকায় রেজিস্ট্রি করে মিরাজকে প্লটের দলিল হস্তান্তর করে। ওই প্লটেই কেডিএ তিনতলা ভবন নির্মাণ করে দেবে। এ ব্যাপারে কেডিএর চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহসানুল হক বলেন, ‘বাংলাদেশের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক টেস্টজয়ের স্বীকৃতিস্বরূপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেহেদী মিরাজকে খুলনা শহরে আবাসন সুবিধা প্রদানের ঘোষণা দেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা ও অনুমোদন অনুযায়ী প্রতীকী মূল্যে মাত্র এক হাজার এক টাকায় জমি বরাদ্দ, দখল ও দলিল সম্পাদন করে মিরাজের কাছে হস্তান্তর করা হয়।’ অনুষ্ঠানে মিরাজের বাবা জালাল তালুকদার বলেন, ‘আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। আপনাদের সবার দোয়া চাই। মিরাজের জন্য দোয়া করবেন।’ মিরাজ বলেন, ‘এ জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।’ তিনি জানান, তাঁর মিরাজ হয়ে ওঠার পেছনে পরিবারের পাশাপাশি ক্রিকেট বোর্ডেরও (বিসিবি) অবদান অনেক। এ জন্য তিনি বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন আর তা বাস্তবায়ন করেছেন। অনেকেই আমাকে বলত কবে পাব ওই জমি? এখন সবাই বুঝতে পেরেছেন, প্রধানমন্ত্রী যেটা বলেন তা করেন।’  অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন সাবেক মন্ত্রী বেগম মুন্নুজান সুফিয়ান, সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান।

ফেসবুক মতামত

জন মত দিয়েছেন

Show Buttons
Hide Buttons

সর্বশেষ খবর জানতে ফেসবুক এ আমাদের সাথে থাকুন

আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন খবর সংগ্রহ করে থাকি আপনারই জন্য। আমরা চাই আপনারা জানুন "সদ্য সংবাদ, সবার আগে"।


সর্বশেষ খবর জানতে ফেসবুক এ আমাদের সাথে থাকুন

আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন খবর সংগ্রহ করে থাকি আপনারই জন্য। আমরা চাই আপনারা জানুন "সদ্য সংবাদ, সবার আগে"।