আন্তর্জাতিক

৭ বছর আগেই বাংলাদেশ ছেড়েছিলেন নিউইয়র্কের ‘হামলাকারী’

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরের ম্যানহাটন এলাকায় বাস টার্মিনালে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণের পর সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার বাংলাদেশি তরুণ সাত বছর আগে দেশ ছাড়েন। নিউইয়র্ক পুলিশ জানায়, সন্দেহভাজন ওই হামলাকারীর নাম আকায়েদ উল্লাহ (২৭)। বোমা হামলার পর ঘটনাস্থলে আহত অবস্থায় পড়ে ছিলেন তিনি। আকায়েদ শরীরে পাইপবোমা বহন করছিলেন। পুলিশের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, অভিযুক্ত হামলাকারী আকায়েদ বাংলাদেশি। ২০১১ সালে অভিবাসী ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে যান তিনি। নিউইয়র্কের ব্রুকলিন এলাকায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন আকায়েদ। নিউইয়র্কে ভাড়ায় গাড়ি চালাতেন তিনি। তবে সম্প্রতি তাঁর লাইসেন্সের মেয়াদোত্তীর্ণ হয়। যুক্তরাষ্ট্রের হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগের মুখপাত্র টেইলার হাউলটন জানান, আকায়েদকে গ্রেপ্তারের পর ব্রুকলিন স্ট্রিট বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। এই রাস্তাতেই বাস করতেন আকায়েদ। আটক করা হয়েছে আকায়েদের মা ও ভাইকেও। হামলার পর ম্যানহাটনের বেলিভিউ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন আকায়েদ। তাঁর মুখ, হাত ও পেটের অনেক অংশ পুড়ে ও কেটে গেছে। আকায়েদের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান জেমস ও’নেইল নামের এক পুলিশ কর্মকর্তা।

এ বিষয়ে ডায়ান ক্লার্ক নামের ব্রুকলিনের একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা জানান,  এর আগে ব্রুকলিনে এমন কিছুই ঘটেনি। তাঁর অফিসের কাছেই এমন কেউ বসবাস করছে, তা আশ্চর্যজনক। খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব বড়দিনের মাত্র দুই সপ্তাহ আগে এই বোমা হামলার পেছনে কোনো সন্ত্রাসী সংগঠনের হাত আছে কি না, তা তদন্তে মাঠে নেমেছে পুলিশ। এখন পর্যন্ত আকায়েদের সঙ্গে কোনো সন্ত্রাসী সংগঠনের যোগসূত্র খুঁজে পায়নি তারা। এমনকি এর আগে কখনো গ্রেপ্তারও হননি তিনি। তবে তার সঙ্গে ইসলামিক স্টেটের (আইএস) যোগাযোগ ছিল বলে ধারণা করছে পুলিশ। বিবিসির খবরে বলা হয়, সোমবারের বোমা বিস্ফোরণে চারজন আহত হন। তবে কারো অবস্থা আশঙ্কাজনক নয়। এর মধ্যে একজন নিরাপত্তাকর্মী রয়েছেন।

ফেসবুক মতামত

জন মত দিয়েছেন

Show Buttons
Hide Buttons

সর্বশেষ খবর জানতে ফেসবুক এ আমাদের সাথে থাকুন

আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন খবর সংগ্রহ করে থাকি আপনারই জন্য। আমরা চাই আপনারা জানুন "সদ্য সংবাদ, সবার আগে"।


সর্বশেষ খবর জানতে ফেসবুক এ আমাদের সাথে থাকুন

আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্ন খবর সংগ্রহ করে থাকি আপনারই জন্য। আমরা চাই আপনারা জানুন "সদ্য সংবাদ, সবার আগে"।